পেকুয়ায় এডিটিং করে তরুণীর অশ্লীল ছবি প্রকাশ,এই নামে শীর্ষ সংবাদের প্রতিবাদ

গত ( ৫ শে আগস্ট ) বিভিন্ন অনলাইন পত্রিকায় এই শিরোনামে,এডিটিং করে তরুণীর অশ্লীল ছবি প্রকাশ, ইউপি সদস্যসহ দুইজনের বিরুদ্ধে থানা এজাহার এই
শিরোনামে যে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে তা মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন উক্ত সংবাদের ভিতরে
তরুণীর ছবি তৈরি করে ফাঁস করার অভিযোগ উঠে এসেছে স্থানীয় এক ইউপি সদস্যসহ যুবকের বিরুদ্ধে এই সংবাদটি সম্পূর্ণ মিথ্যা কোথাও কোন এডিটিং করে ছবি প্রকাশ করা হয়নি।বিগত ৩ বছর পূর্বে আলীকদমের বাসিন্দা মুফিজুর রহমান তার স্ত্রী  কাজল আক্তার তাদের ছেলে মালেশিয়া প্রবানী মোঃ শোয়াইবের সাথে বদি আলমের মেয়ে জুলেখা বেগমের সাথে বিবাহ ঠিক হয়।এর পরে শোয়াইবের  কাছ থেকে ২ ভরি স্বর্ণ ও ৩ বছরে বিভিন্ন অজুহাত দেখিয়ে ৪ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা নেয় । কিন্তু বিশ্ব মহামারী করোনা ভাইরাসের কারণে শোয়াইব দেশে আসতে না পারায় বদিআলম মেয়ে জুলেখাকে অন্য জায়গায় বিয়ে দিয়ে দেন। শোয়াইব তার দেওয়া টাকা ও স্বর্ণ ফেরত চাইলে তারা ভিন্ন ইস্যুতে
প্রভাবিত করে টাকা না দেওয়ার জন্য ফন্দি বের করেন
কাজল আক্তার আমার ভাগনী সেই সুবাদে তার ছেলে শোয়াইবের ঠিক পদ্ধের সময় আমাকে দাওয়াত দেয় সে কারণে ঠিক পদ্ধে আমিও সাক্ষী ছিলাম, যখন বদি আলম শোয়াইবকে মেয়ে বিয়ে না দিয়ে অন্য জায়গায় মেয়ে বিয়ে দেয়, তখন আমার ভাগনী আমাকে তার ছেলের দেওয়া স্বর্ণ ও টাকা ফেরত নেওয়ার কথা বল্লে আমি বিষয়টা স্থানীয় মেম্বার আবু সালেকে অবগত করি, প্রথমে তারা মেম্বারের ডাকে সাড়া দেয়,

পরবর্তীতে বদি আলম বুঝতে পেরেছে শোয়াইবের কাছ থেকে নেওয়া টাকা ফেরত দিতে হবে,তখন সে নিজেকে সেভ করার জন্য, বিভিন্ন জায়গায় গিয়ে আমি আবু সালেক মেম্বারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করতেছে।
তার এই সব ষড়যন্ত্রের তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি
নিবেদক
মোহাম্মদ ফজল করিম
পিতা : আজিজুর রহমান
সাং নন্দির পাড়া, পেকুয়া সদর,
পেকুয়া, কক্সবাজার ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *