চেয়ারম্যান জাহেদ চৌধুরীর সময়ে উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় টৈটং :১ম পর্ব

নিজস্ব প্রতিবেদক:

আমরা যার কথা লিখব,তিনি একাত্তরের রণাঙ্গনের একজন বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান,তার এলাকার জনসাধারণের দাবি, তিনি একজন সফল চেয়ারম্যান।

নিশ্চিত করেছেন গরীব অসহায়দের জানমালের নিরাপত্তা, পাহাড়ী অঞ্চলে বসবাসরত জনসাধারণের নিরাপত্তা নিশ্চিত করণ,বন্ধ ছিল চাঁদাবাজি, চুরি ডাকাতি, নির্ভয়ে নিরাপদে বসবাস করে ছিল এই অঞ্চলের মানুষ। সন্ত্রাসীদের কঠোর হস্তে দমন করে ছিলেন,লাশ পড়েনি তাঁর সময়ে।
ষড়যন্ত্রকারীরা তাঁর কারণে সুবিধা করতে না পারায়, ৪ বছর ৬ মাস পেকুয়া উপজেলার টৈটং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এর দ্বায়িত্ব পালনের পর,সেই সব ষড়যন্ত্রকারীরা, কৌশলে ষড়যন্ত্রের জালে পেলে চেয়ারম্যান পদ থেকে বহিষ্কার করান।
তাঁকে ষড়যন্ত্রে পেলানোর নীল নকশায় ছিল প্রশাসনের কিছু বড় কর্তা বাবু।এমনকি তাকে একাধিকবার হত্যা ও ক্রসফায়ারে দেওয়ার চেষ্টা করেছিল।ঐ সব চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে। কৌশলে ত্রাণের চাল আত্মসাদে ফাঁসিয়ে দিলেন।

যে ত্রাণের চাল আত্মসাতের কথা বলা হয়েছে, তার ছেয়ে চার গুন বেশি চাল করোনা মহামারিতে নিজস্ব তহবিল থেকে মানুষকে দান করেছেন।

ষড়যন্ত্রের শিকার হয়ে চেয়ারম্যানের পদ হারালেন,
সফল হলেন ষড়যন্ত্রকারীরা, পরাজিত হলেন টৈটংবাসী, কিন্তু সে ষড়যন্ত্র দীর্ঘ দিন স্থানী হলোনা
তিনি প্রথমে মহামান্য হাইকোর্ট ও পরে নিম্ন আদালত থেকে জামিন লাভ করেন।

আমাদের আয়োজন তাঁর সফলতা ও ব্যার্থতা এবং উন্নয়ন নিয়ে অনু সন্ধান।পাঠককে অনুরোধ করব শেষ পর্ব পযন্ত পড়ার জন্য!!একজন মানুষ সব জায়গায় ভালো করতে পারে না,আর যিনি ১০০% মধ্যে৭০% ভালো করতে পারে সবাই তাঁকে ভালো মানুষ বলে।
আমরা যাকে নিয়ে লিখছি প্রথমে তাঁর পরিচয় জানা দরকার –
১৯৭৩ সালের ১০ এপ্রিল কক্সবাজারের পেকুয়া উপজেলার টৈটং ইউনিয়নের পন্ডিত পাড়া এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন।
নাম:জাহেদুল ইসলাম চৌধুরী
পিতা : বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম নুরুল ইসলাম চৌধুরী (নাবালক মিয়া)
মাতা:সাফিয়া বেগম।
বড়ো ভাই সেলিমুল আহসান চৌধুরী টইটং উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক, আরেক বড় ভাই শফিউল আহসান চৌধুরী টইটং ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও আরেক ভাই মনিরুল ইসলাম চৌধুরী যুগ্মসম্পাদক টইটং ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ।
তিনি বৈবাহিক জীবনে এক ছেলে ও এক মেয়ের জনক। বর্তমান ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক,ও আওয়ামীলীগ পরিবারের সন্তান।
তার সময়ে তিনি নির্মাণ করেছেন একাধিক রাস্তা, কালভার্ট, খাল খনন, মসজিদ, মাদ্রাসা, স্কুলের সংস্কার,,,,,,
বাকি আংশ ২য় পর্বে,

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *